নাটকীয়তায় ভরপুর দুবাই টেস্ট

0
112

নাটকীয়তা যেন কোনোভাবেই পিছু ছাড়ছে না দুবাই টেস্টে। ক্ষণে ক্ষণে ম্যাচের মোড় পাল্টে যাচ্ছে এই ম্যাচের। সরফরাজ আহমেদ এবং আসাদ শফিকের ঘাড়ে ভর করে যখনই জয়ের স্বপ্ন দেখছিল পাকিস্তান, তখনই সরফরাজ ৬৮ রানে আউট হয়ে গেলেন। পাকিস্তানের বর্তমান স্কোর ৭ উইকেটে ২৩০ রান। জেতার জন্য প্রয়োজন আরো ৮৭ রান।

খেলার চুতুর্থ দিনে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে লঙ্কানদের ছুড়ে দেয়া ৩১৭ রান তাড়া করতে নেমে পাকিস্তানের সংগ্রহ যখন ৫ উইকেটে ৫২ রান, তখন সবাই হিসেব কষছেন কত রানের ব্যবধানে পাকিস্তান হারতে যাচ্ছে। কিন্তু বিষয়টা যেন একেবারেই ভালো লাগেনি আসাদ শফিক ও সরফরাজ আহমেদের। তাই তো মাটি কামড়ে ব্যাট করে ম্যাচের চতুর্থ দিন পার করে দেন। এই দু’জনের অপরাজিত হাফ সেঞ্চুরিতে পাকিস্তান চতুর্থ দিন শেষ করেছে ৫ উইকেটে ১৯৮ রানে। ১৪৬ রানের এই জুটির সুবাদে পাকিস্তান জয়ের থেকে ১১৯ রান দূরে ছিল।

কিন্তু ম্যাচের শেষ দিনে খেলতে নেমে আসাদ শফিক সেঞ্চুরি পেলেও সরফরাজ ৬৮ রানে আউট হয়ে যান। পেরেরার বলে সুইপ করতে যেয়ে ব্যকওয়ার্ড স্কায়ার লেগে প্রদীপের হাতে ক্যাচ দেন তিনি। এরপর মোহাম্মদ আমিরও পেরার বলে এলবিডব্লিউ আউট হন। এখন ক্রিজে আছেন আসাদ শফিক এবং ইয়াসির শাহ।

এর আগে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে শ্রীলঙ্কা। ওয়াহাব রিয়াজের বোলিং তোপে উড়ে যায় লঙ্কানদের ব্যাটিং অর্ডার। পাশাপাশি তাকে সঙ্গ দয়েছেন হরিস। মাত্র এক ওভার বল করেই তিনটি উইকেট তুলে নিছেন তিনি। কিন্তু তার পরও প্রথম ইনিংসে ৪৮২ রান করায় ৩১৭ রানে বড় লিড পায় শ্রীলঙ্কা। কারণ প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ২৬১ রানেই গুটিয়ে যায় পাকিস্তান।

ব্যাটিং বিপর্যয় কাটেনি দ্বিতীয় ইনিংসেও। ৩১৭ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দিলরুয়ান পেরেরার বলে শুরুতেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন সামি আসলাম (১)। চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন আজহার আলী (১৭)। খানিক পর দিলরুয়ানের দ্বিতীয় শিকার হয়ে হারিস (৪৯) সাজঘরে ফিরলে কঠিন অবস্থা তৈরি হয় পাকিস্তানের। সেটা আরো বড় আকার ধারণ করে শান মাসুদের (২১) পরপরই বাবর আজম (০) আউট হলে।
কিন্তু শেষমেষ ম্যাচের হাল ধরেন আসাদ শফিক এবং সরফরা আহমেদ। লঙ্কান বোলিং এটাক প্রতিরোধ করে ৮৬ রান এবং ৫৭ রানের দুটি ঝরঝরে ইনিংসের সুবাদে জয়ের থেকে এখন ১১৯ দূরে রয়েছে পাকিস্তান। ১৪৬ রানের জুটি ম্যাচের শেষ দিনে জয় ছুঁতে পারবে কিনা সবার দৃষ্টি এখন সেদিকেই।
খেলতে পারবেন না আমির

ডান পায়ের ইনজুরির কারণে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আসন্ন ওয়ানডে সিরিজে খেলতে পারবেন না পাকিস্তানের বাঁ-হাতি পেসার মোহাম্মদ আমির। এমনকি দুবাইয়ে চলমান টেস্টেও বোলিং করতে পারবেন না তিনি। এই ইনজুরির কারণে দুই থেকে তিন সপ্তাহ বিশ্রামে থাকতে হবে তাকে। আজ এক বিবৃতিতে এমন খবর নিশ্চিত করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

দুবাইয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টের প্রথম ইনিংসে ১৯ ওভার বোলিং করেন আমির। নিজের ২০ ওভারেরতৃতীয় ডেলিভারির পরই পায়ে ব্যাথা অনুভব করে মাঠ ছাড়েন তিনি। এরপর আর মাঠে নামতে পারেননি তিনি।

আমিরের ইনজুরি নিয়ে এক বিবৃতিতে পিসিবি জানায়, ‘ডান পায়ে ব্যাথা অনুভব করার পর আমিরের স্ক্যান রিপোর্ট করা হয়। সেখানে তার সমস্যা ধরা পড়েছে। এজন্য দুই থেকে তিন সপ্তাহ বিশ্রামে থাকতে হবে তাকে। তাই শ্রীলংকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে খেলতে পারবেন না তিনি। এমনকি চলমান টেস্টেও আর বোলিং করতে পারবেন না। তবে ব্যাটিং করতে নামবেন আমির।’

আমিরের না থাকায় দ্বিতীয় ইনিংসে পেস অ্যাটাক নিয়ে সমস্যায় পড়বে পাকিস্তান। কারণ দ্বিতীয় ইনিংসে পেস অ্যাটাকে পাকিস্তানের ভরসা এখন ওয়াহাব রিয়াজ ও মোহাম্মদ আব্বাস। এরই মধ্যে রিয়াজের বোলিং নিয়ে অসন্তুষ্ঠ পাকিস্তান টিম ম্যানেজমেন্ট।

আগামী ১৩ অক্টোবর থেকে দুবাইয়ে শুরু হবে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ।

dailynayadiganta

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here