বাংলাদেশ নিয়ে ভারতের নতুন ভাবনা: সুষমা-খালেদা একান্ত বৈঠক সোমবার

0
198

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ২৪ ঘণ্টার সফরে বাংলাদেশে আসছেন ২২ অক্টোবর। অফিসিয়াল কারন হিসাববে বলা হয়েছে পরামর্শক কমিটির বৈঠকে অংশ নেয়া। তবে আগে থেকেই জানা গেছে, এই সফরের সবচেয়ে বড় কারন হবে – বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাথে সুষমার বৈঠক।

সফরের শেষ পর্যায়ে সোমবার দুপুরে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে সুষমা স্বরাজের একান্ত বৈঠক হওয়ার কথা। বৈঠকের সময় ও স্থান সম্পর্কে যদিও কোন পক্ষ থেকেই কিছুই জানানো হয়নি, তবে সংশ্লিষ্ট কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, বেগম খালেদা জিয়ার গুলশানস্থ বাসায় এই বৈঠকের অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকের পর বেগম জিয়ার বাসায়ই তাঁর আতিথেয়তায় সুষমা স্বরাজ মধ্যাহ্নভোজ সারতে পারেন। এরপর ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিল্লীর উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়বেন। তবে অফিসিয়াল কর্মসূচিতে এসব বিষয় উল্লেখ নেই। সবই হচ্ছে অত্যন্ত গোপনে।

একটি বিশেষ ফ্লাইটে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ঢাকায় আসবেন রোববার দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিটে। বিনাভোটের সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বিমান বন্দরে স্বাগত জানাবেন। বিকেল সাড়ে ৫টায় রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় দুই দেশের চতুর্থ যৌথ পরামর্শক কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় সুষমা স্বরাজ গণভবনে বাংলাদেশের বিনাভোটের (বিদায়ী) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করবেন। পরের দিন সকালে ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশনে আয়োজিত এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগদান করবেন। এছাড়া ভারতের অর্থায়নে বাস্তবায়িত ১৫টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করার কথা আছে সুষমার

দু’মাস আগে বিডিপিলিটিকো‘র এক রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়, বেগম খালেদা জিয়ার লন্ডন সফরে দিল্লির ক্ষমতাসীনদের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ন সিরিজ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে, যার মধ্য দিয়ে ভারতের সাথে বিএনপির দূরত্ব কমে আসবে। এর চুড়ান্ত বহিঃপ্রকাশ ঘটবে সুষমা স্বরাজের সাথে বেগম খালেদা জিয়ার গুরুত্বপূর্ন বৈঠকের মধ্য দিয়ে। মূলত, খালেদা জিয়ার সাথে বৈঠক করতেই সুষমার ঢাকা সফর। যৌথ পরামর্শক কমিটির সভায় সাধারনত পররাষ্ট্র সচিবরা নেতৃত্ব দেন। মূলত এই সফরের উছিলায় ভারতীয়রা বাংলাদেশের আগামী দিনের ক্ষমতাসীনদের সঙ্গে অগ্রিম বোঝাপড়ার কাজটা সেরে নিতে যাচ্ছে।

সব মিলিয়ে, সুষমার এ সফরের পরেই বাংলাদেশ বিষয়ে ভারতের ভাবনায় গুরুত্বপূর্ন পরিবর্তন দৃশ্যমান হয়ে উঠবে। সেই সাথে, বাংলাদেশের রাষ্ট্রব্যবস্থা ও রাজনীতিতে অনেক উলটপালট দেখা যেতে পারে।

বিডিপিলিটিকো

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here